shasthokothaxyz@gmail.com

+8801953906973

পাথর কুচি পাতার ৯টি গুণাবলী

চিকিৎসার ক্ষেত্রে যেসব ঔষধি গাছ প্রাচীন কাল থেকে ব্যবহার হয়ে আসছে তার মধ্য পাথরকুচি অন্যতম।

fgggg Md Ashiqur Rahman ভিউ: 436

Logo

পোস্ট আপডেট 2020-12-27 17:52:24   1 year ago

আমাদের চারপাশে প্রকৃতির যেসব ভেষজ  উদ্ভিদ আছে তার মধ্যে একটি ভেষজ উদ্ভিদ পাথর কুচি গাছ। এ গাছের পাতা বিভিন্ন রোগের সমস্যা সমাধান করে। আমরা অনেকেই এ গাছকে কোন  গুরুত্ব করি না।কিন্তু এ গাছের পাতা বিশেষ উপকারী। এ গাছের পাতা থেকে চারা হয়।একটা পাতা ফেলে দিলেই চারা উঠে ভরে যায়। তাই আমরা নিজ নিজ বাসার আঙিনায় এই গাছটি রোপণ করি।এতে আমাদের অনেক কাজে লাগবে।

যেসব রোগে পাথর কুচি পাতা অপরিসীম সেটা আমরা একবার নিজের চোখেই দেখে আসি।

১)  শিশুদের পেট ব্যথায়ঃ

 শিশুর পেটব্যথা হলে, ৩০-৬০ ফোঁটা পাথর কুচির পাতার রস পেটে মালিশ করলে ব্যথার উপশম হয়।

২) সর্দি:

 সর্দি পুরান হয়ে গেছে, সেই ক্ষেত্রে এটি বিশেষ উপকারী। পাথরকুচি পাতা রস করে সেটাকে একটু গরম করতে হবে এবং গরম অবস্থায় তার সাথে একটু সোহাগার খৈ মেশাতে হবে। তিন চা-চামচের সাথে ২৫০ মিলিগ্রাম যেন হয়। তা থেকে দুই চা চামচ নিয়ে সকালে ও বিকেলে দুবার খেলে পুরান সর্দি সেরে যাবে এবং সর্বদা কাশি থেকে রেহাই পাওয়া যাবে।

৩) পোকা কামড়: 

বিষাক্ত পোকায় কামড়ালে এ পাতার রস আগুনে সেঁকে লাগালে উপকার পাওয়া যায়।

৪) উচ্চ রক্তচাপ:

 উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে এবং মুত্রথলির সমস্যা থেকে পাথরকুচি পাতা মুক্তি দেয়। এছাড়াও  কিডনি এবং গলগণ্ডের পাথর অপসারণ করতে সাহায্য করে।

৫) পেট ফাঁপাঃ 

আমাদের অনেক সময় পেট ফুলে বা  প্রসাব আটকে আছে। সে ক্ষেত্রে একটু চিনির সাথে দুই চা-চামচ পাথর কুচির পাতার রস গরম করে পানির সাথে মিশিয়ে খেলে উপকার পাওয়া যাবে।

৬)  ত্বকের যত্নঃ

এই পাথরকুচি পাতায় প্রচুর পরিমাণে পানি থাকে যা ত্বকের জন্য খুবই উপকারী।

৭) পাইলসঃ

যাতের পাইলস্ সমস্যা তারা  পাতার রসের সাথে গোল মরিচ মিশিয়ে পান করুন।

৮)  জন্ডিস নিরাময়েঃ

আমাদের লিভারের যেকোনো সমস্যা থেকে রক্ষা পেতে তাজা পাথরকুচি পাতা ও এর জুস অনেক উপকারী।

৯) শরীর জ্বালাপোড়াঃ 

দু-চামচ পাথর কুচি পাতার রস, আধা কাপ গরম পানিতে মিশিয়ে দুবেলা খেলে শরীরের জ্বালাপোড়া কমে।



কমেন্ট


সাম্প্রতিক মন্তব্য


Logo

Upma tewari 1 year ago

Thanks your information

Logo

Md:bayazid Hossain 1 year ago

Thanks