shasthokothaxyz@gmail.com

+8801953906973

অ্যালোভেরা ১২টি উপকারিতা

অ্যালোভেরা একটি ভেষজ উদ্ভিদ। অ্যালোভেরার আরেক নাম ঘৃতকুমারী। এটা আমরা অ্যালোভেরা নামেই চিনি।এই উদ্ভিদ টি আমরা সকলেই চিনি।

fgggg Md Ashiqur Rahman ভিউ: 384

Logo

পোস্ট আপডেট 2020-12-28 00:01:00   1 year ago

অ্যালোভেরা প্রাচীন কাল থেকেই এই ভেষজ উদ্ভিদ টি ব্যবহার হয়ে আসছে। এই অ্যালোভেরার ভিতরে পিছলে এক প্রকার জেল থাকে। এই অ্যালোভেরা আমাদের বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধে সহায়তা করে। বহুগুণে এই উদ্ভিদের ভেষজ গুণের শেষ নেই। এতে আছে ক্যালসিয়াম, সোডিয়াম, আয়রন, পটাশিয়াম, ম্যাঙ্গানিজ, জিঙ্ক, ফলিকঅ্যাসিড, অ্যামিনো অ্যাসিড ও ভিটামিনএ, বি৬, বি২ ইত্যাদি। অ্যালোভেরার জেল রুপচর্চা থেকে শুরু করে স্বাস্থ্য রক্ষায়ও ব্যবহার হয়ে আসছে। যদি অ্যালোভেরা নিয়মিত আপনি ব্যবহার করেন তাহলে অনেক রোগ-বালাই থেকে আপনি খুব সহজে দূরে থাকতে পারবেন।

চলুন নিচে দেখে নিই অ্যালোভেরার ১২টি অতুলনীয় উপকারিতা


১। ত্বকের যত্নে অ্যালোভেরাঃ

ত্বকের যত্নে অ্যালোভেরার ব্যবহার সম্পর্কে আমরা সবাই জানি। অ্যালোভেরার অ্যান্টি ইনফ্লামেনটরী উপাদান ত্বকের ইনফেকশন দূর করে ব্রণ হওয়ার প্রবণতা কমিয়ে দেয়। 


২। চুল সুন্দর করতে অ্যালোভেরাঃ

অ্যালোভেরার গুনাগুন বলে শেষ করা যাই না, মাথায় খুশকি দূর করতে এর কোন তুলনা নেই। এমনকি ঝলমল চুলের জন্যেও অ্যালোভেরা অনেক উপকারী। সুতরাং চুলের যত্নে অ্যালোভেরা আপনার নিত্যসংগী।


৩। হার্ট সুস্থ রাখতে অ্যালোভেরাঃ

আপনার হৃদযন্ত্রকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে অ্যালোভেরার জুস। অ্যালোভেরা কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে দেয়। এটি ব্লাড প্রেসারকে নিয়ন্তর করে রক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক রাখে এবং রক্তে অক্সিজেন বহন করার ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়। দূষিত রক্ত দেহ থেকে বের করে রক্ত কণিকা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। ফলে দীর্ঘদিন আপনার হৃদযন্ত্র সুস্থ থাকে।


৪। মাংসপেশী ও জয়েন্টের ব্যথা প্রতিরোধ অ্যালোভেরাঃ

অ্যালোভেরা মাংসপেশীর ব্যথা কমাতে সাহায্য করে থাকে। এমনকি ব্যথার স্থানে অ্যালোভেরা জেলের ক্রিম লাগালে ব্যথা কমে যায়।


৫। দাঁতের যত্নে অ্যালোভেরাঃ

অ্যালোভেরার জুস দাঁত এবং মাড়ির ব্যথা উপশম করে থাকে। দাঁতে কোন ইনফেকশন থাকলে তাও দূর করে দেয়। নিয়মিত অ্যালোভেরার জুস খাওয়ার ফলে দাঁত ক্ষয় প্রতিরোধ করা সম্ভব।


৬। ওজন হ্রাস করতে অ্যালোভেরাঃ

ওজন কমাতে অ্যালভেরা জুস বেশ কার্যকরী।বিভিন্ন কারণে শরীরে মেদ জমে। অ্যালোভেরা জুসের অ্যাণ্টি ইনফ্লামেনটরী উপাদান এই প্রদাহ রোধ করে ওজন হ্রাস করে থাকে। পুষ্টিবিদগণ এই সকল কারণে ডায়েট লিস্টে অ্যালোভেরা জুস রাখার পরামর্শ দিয়ে থাকেন।


৭। ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করতে অ্যালোভেরাঃ

অ্যালোভেরা জুস রক্তে সুগারের পরিমাণ ঠিক রাখে এবং দেহে রক্ত সঞ্চালন বজায় রাখে। ডায়াবেটিসের শুরুর দিকে নিয়মিত এর জুস খাওয়া গেলে ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করা সম্ভব। 


৮। মুখের ঘা সারাতে অ্যালোভেরাঃ

অনেকের মুখে ঘা হয়, আর এই মুখের ঘা দূর করতে অ্যালোভেরা অত্যন্ত কার্যকারী। ঘায়ের জায়গায় এলভেরার জেল লাগিয়ে দিলে মুখের ঘা ভাল হয়।


৯। ক্যান্সার  প্রতিরোধে অ্যালোভেরাঃ

 অ্যালোভেরায় রয়েছে অ্যালো ইমোডিন, যা স্তন ক্যান্সার ছড়ানো থেকে রোধ করে। এছাড়াও অন্যান্য ক্যান্সার প্রতিরোধে অ্যালোভেরা  অনেক কার্যকারী ভূমিকা পালন করে থাকে।


১০। হজমশক্তি বাড়াতে অ্যালোভেরাঃ

হজমশক্তি বৃদ্ধিতে অ্যালোভেরা জুসের জুড়ি নেই। এটি অন্ত্রের উপকারী ব্যাকটেরিয়া বৃদ্ধি করে অন্ত্রে প্রদাহ সৃষ্টিকারী ব্যাকটেরিয়া রোধ করে, যা হজমশক্তি বাড়িয়ে থাকে। 


১১। রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করঃ

অ্যালোভেরার অনেক গুনাগুনের মধ্যে আর একটি  হল রক্তচাপ কমাতে এর কোন তুলনা নেই। অ্যালোভেরার ঔষধি গুণ রক্তচাপ কমায় এবং রক্তে কোলেস্টেরল ও চিনির মাত্রা স্বাভাবিক অবস্থায় আনতে সাহায্য করে।


১২।ক্লান্তি দূর করে ঃ

ক্লান্তি দূর করতে অ্যালোভেরার জুসের গুন অনেক। আপনি যদি অ্যালোভেরার জুস নিয়মিত পান করেন তাহলে দেহের ক্লান্তি দূর হবে এবং দেহকে সতেজ ও সুন্দর রাখবে।



কমেন্ট


সাম্প্রতিক মন্তব্য


Logo

Upma tewari 1 year ago

Thanks

Logo

Sony Akter 1 year ago

Thanks

Logo

MD Dedarul Islam 1 year ago

Thinks