shasthokothaxyz@gmail.com

+8801953906973

ত্বক থেকে স্ট্রেচ মার্ক দূর করার ৭টি কার্যকারী ধাপ

মানুষের ত্বকে কোনো কারণে টান পড়লে এ ধরনের দাগ পড়ে। গর্ভবতী মায়ের পেটের ভিতরে আস্তে আস্তে একটি শিশু বড় হতে থাকে, তাই পেটের ত্বকেও ধীরে ধীরে টান পড়ে বলে ত্বকে এ দাগগুলো পড়ে বলে অনেকের ধারণা।

fgggg Md Ashiqur Rahman ভিউ: 283

Logo

পোস্ট আপডেট 2021-01-14 00:02:34   10 months ago

আমাদের সবারই কম বেশী স্ট্রেচ মার্ক আছে। সাধারণত কোমর, ঘাড়ের ভাঁজে, পেটে, পায়ের ভাঁজে স্ট্রেচ মার্ক পড়ে থাকে। অনেকের স্ট্রেচ মার্ক শরীরের বাহ্যিক দিকে থাকে। এটি দেখতে যেমন দৃষ্টিকটু তেমনি অনেক অপ্রতিকর প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়। আর এই স্ট্রেচ মার্ক দূর করা নিয়ে আমাদের দুশ্চিন্তার শেষ নেই। সাধারণত কোন ঔষধ বা প্যাকে দাগগুলো দূর হয় না। অনেকে লেজার ট্রিটমেন্ট দিয়ে এই দাগ দূর করে থাকে। তবে প্রাকৃতিকভাবে দাগ দূর করা গেলে বেশী ভাল হয়।অতিরিক্ত ওজন বাড়ানো,অতিরিক্ত ওজন কমানো,হরমোনাল ইমব্যালেন্স,বংশগত কারণে হয়ে থাকে স্ট্রেচ মার্ক।


আসুন জেনে নেই প্রাকৃতিকভাবে স্ট্রেচ মার্ক দূর করার উপায়।


১. ভিটামিন ‘ই’ তেল স্ট্রেচ মার্ক দূর করতে বেশ কার্যকর। তাই কোনো ওষুধ ব্যবহার না করে মার্কের ওপর দিনে দুবার ভিটামিন ‘ই’ তেল ম্যাসাজ করুন।


২.ক্যাস্টর অয়েল: ‘রিসিনোলেইক অ্যাসিড’ থাকে ‘ক্যাস্টর অয়েল’য়ে, যা ত্বকের একটি ‘কন্ডিশনিং এজেন্ট’। তাই ফাটা দাগ দূর করতে এটি বেশ কার্যকরী। পাশাপাশি ত্বক ও চুলের জন্যও এই তেল উপকারী। ক্যাস্টর অয়েল সামান্য গরম করে ফাটা দাগ আক্রান্ত অংশে ১৫ থেকে ২০ মিনিট মালিশ করতে হবে।

৩. ভিটামিন-সি-সমৃদ্ধ ক্রিম ব্যবহার করুন। দিনে তিনবার ফাটা দাগের ওপর ম্যাসাজ করুন। ভিটামিন-সি-সমৃদ্ধ ক্রিম না পেলে সাপ্লিমেন্টও নিতে পারেন। সে ক্ষেত্রে সাপ্লিমেন্টটি দিনে তিনবার খেতে হবে।

৪. পানি পান
প্রতিদিন ৮ থেকে ১০ গ্লাস পানি পান করুন। কিছুদিনের মধ্যে দেখতে পাবেন আপনার স্ট্রেচ মার্ক হালকা হয়ে গেছে। আস্তে আস্তে সম্পূর্ণ দাগ দূর হয়ে যাবে।

৫. পুষ্টিসম্পন্ন খাবার গ্রহণ
প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় ভিটামিন সি, ই, জিংক সমৃদ্ধ খাবার রাখার চেষ্টা করুন। ভিটামিন সি আপনার টিস্যু পুনর্বিন্যাস করে থাকে। নানা রকম ফল যেমন স্ট্রবেরী, গাজর, শাক, সবুজ মটরশুটি, বাদাম ইত্যাদি প্রতিদিন খাওয়ার চেষ্টা করুন।

৬. লেবুর রসের ব্যবহার
লেবুর রসে প্রাকৃতিক এসিড আছে যা দাগ দূর করে থাকে। এটি স্ট্রেচ মার্ক দূর করতেও অনেক ভাল কাজ করে। স্ট্রেচ মার্ক এর ওপর লেবুর রস দিয়ে ম্যসেজ করুন। ১০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর ধুয়ে ফেলুন। এই কাজটি প্রতিদিন করা চেষ্টা করুন।

৭. ক্রিম এবং ময়েশ্চারাইজার
ক্রিম ও ময়েশ্চারাইজার নিয়মিত ব্যবহার করুন। এটি আপনার ত্বকের নমনীয়তা ধরে রাখবে। নতুন স্ট্রেচ মার্ক দূর করার ক্ষেত্রে লোশন খুব ভাল কাজ করে। কিন্তু পুরাতন দাগে তেমন লক্ষ্যণীয় প্রভাব ফেলে না। ওজন কমানোর জন্য সৃষ্টি স্ট্রেচ মার্ক রিটিনোইক এসিড ক্রিম ব্যবহার করলে ভাল ফল পাওয়া যাবে।



কমেন্ট


সাম্প্রতিক মন্তব্য


Logo

Upma tewari 10 months ago

Thanks