shasthokothaxyz@gmail.com

+8801953906973

হৃদরোগের লক্ষণ এবং বাঁচার উপায়

আমাদের শরীরে প্রতিটি অঙ্গ প্রত্যঙ্গের মধ্যে হৃদয় একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। আমাদের শরীরে যদি কোন ক্রিয়া বন্ধ হয়ে যায় তাহলে সবই শেষ। আমাদের হৃদয় হলো শরীরের মূলধন। তাই আমাদের জানতে হবে হৃদয় কিভাবে কাজ করে, বুঝতে হবে হৃদরোগের লক্ষ্যণসমুহ।

fgggg Md Ashiqur Rahman ভিউ: 1039

Logo

পোস্ট আপডেট 2020-09-20 14:59:47   1 year ago

আমাদের দেশে ৫০ থেকে ৬০ বছর বয়সীদের  হৃদরোগে আক্রান্ত সংখ্যাটা একটু বেশি।  ২৫ থেকে ৩০ বছর বয়সীদের সংখ্যাও ক্রমে বাড়ছে । শিশুদের হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিও রয়েছে। পারিবারিক ইতিহাস ও জেনেটিক বৈশিষ্ট্যই হৃদরোগের ক্ষেত্রে প্রধান ও নিয়ন্ত্রণের অযোগ্য কারণ হিসেবে বিবেচিত হয়। অন্য কারণের মধ্যে উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস, ধূমপান, অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন, অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস, মানসিক চাপ এবং অতিরিক্ত ওজন। 

হৃদরোগের লক্ষণসমূহ


হৃদরোগে বুক ব্যথা সাধারণত বুকের মাঝখানে হয়ে থাকে। কখনও বুকের বামপাশে অনেকখানি জায়গা জুড়েও তা হতে পারে। এই ব্যথা মৃদু থকে তীব্র, বিভিন্ন ধরনের হতে পারে। এই ব্যথা আমাদের  শুধু বুকের মাঝখানে অথবা হৃদপিন্ডের উপরে সীমাবদ্ধ থাকতে পারে। যদিও এই ব্যথা আমাদের  সারা বুকে ছরিয়ে পরতে পাড়ে , বাম কাঁধে, বাম বাহুতে, বাম হাতে, বাম কড়ে আঙ্গুলে।

অনেক সময় অনেকে বলে থাকেন বুকে জ্বালাপোড়া কথা অনেক সময় অনেকে বলে থাকেন। এরকম  হলে সাবধান হোন। কারণ এটি একটি হৃদরোগের অন্যতম লক্ষণ হতে পারে।

হৃদরোগে কেউ আক্রান্ত হলে ঘনঘন শ্বাস-প্রশ্বাস ওঠানামা করে। অনেক সময় রোগী ঘামতে থাক।

হৃদপিণ্ড হঠাৎ করে সবসময় এমনটা হবে তা কিন্তু নয়।  ধীরে ধীরে মানুষের রক্তনালিকে ব্লক করে দেয়। এ ধরনের হৃদরোগকে ‘মায়োকার্ডিয়াল ইনফারকশন’ বা হার্ট অ্যাটাক বলে।

হার্ট অ্যাটাকে আক্রান্ত হলে তাৎক্ষণিকভাবে করণীয়:



যদি কেউ হার্টঅ্যাটাকে আক্রান্ত হন তাহলে প্রথমেই আমাদেরকে জরুরি বিভাগে ডাক্তার দেখাতে হবে। কারণ অভিজ্ঞ ডাক্তার ছাড়া কোনো চিকিৎসা করতে গেলে অনেক সময় রোগীর অবস্থা আরও খারাপ হয়ে পড়তে পারে।

প্রতিকারঃ-


হৃদরোগের অন্যতম প্রধান কারণ হচ্ছে ধুমপান। তাই ধুমপান থেকে সম্পূর্ণ বিরত থাকুন। ধুমপানের মতো মাদকও হৃদরোগের আরেকটি কারণ, তাই মাদককে না বলুন।

আপনি সব সময় চিন্তামুক্ত থাকার চেষ্টা করুন। মাঝে মাঝে ডাক্তারের পরামর্শ নিন। শরীরের রক্তচাপ স্বাভাবিক রাখার চেষ্টা করুন।

মনে রাকবেন আপনার ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। প্রতিদিন নিয়মিত ব্যায়াম করুন। প্রচুর পরিমাণে শাক-সবজি খান। শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণ করুন।




কমেন্ট


সাম্প্রতিক মন্তব্য


Logo

Jannatul ferdousi 1 year ago

yes

Logo

Sony Akter 11 months ago

Thanks

Logo

Upma tewari 11 months ago

Right Information

Logo

Jannatul ferdousi 10 months ago

Thanks for your solution

Logo

স্বাস্থ্য কথা 10 months ago

Nice

Logo

Saba2021 10 months ago

Thanks

Logo

MD.Abir hassan 10 months ago

Nice

Logo

Nilufa akter 10 months ago

Thanks

Logo

Moni 10 months ago

Thanks

Logo

Zahirul islam 10 months ago

Thanks

Logo

Mimi 10 months ago

Thanks

Logo

Kulsum Akter Beli 9 months ago

Thanks

Logo

Rasel Ahamed 9 months ago

Thanks

Logo

Hridoy biswas 9 months ago

Thanks

Logo

Rakib 9 months ago

Thanks

Logo

Abdullah Al Mamun 9 months ago

Thanks

Logo

Labony Akter 9 months ago

Thanks

Logo

Shojibhossain 9 months ago

thanks

Logo

MD Dedarul Islam 9 months ago

Thinks

Logo

Farjana Afroj 9 months ago

Thanks

Logo

Farjana Afroj 9 months ago

Thanks

Logo

Mohammad Khurshed alam 9 months ago

ধন্যবাদ ধন্যবাদ

Logo

Emon khan 9 months ago

Thanks

Logo

Mst Taniya sultana 9 months ago

Thanks

Logo

Afrujaakter Chadni 9 months ago

Wonderful suggestions

Logo

rajon rajon 9 months ago

Thanks

Logo

Nazmul Islam 9 months ago

Thanks

Logo

MD.RAYHAN 9 months ago

Thanks

Logo

Sowrov1234 9 months ago

Thanks

Logo

Rokeya akter shormi 9 months ago

Thanks

Logo

hk faysol ahmed 9 months ago

Thanks

Logo

Musfic Roni 9 months ago

Thanks

Logo

MD Hasan 9 months ago

Nice

Logo

Perbin Akter 9 months ago

Nice ?

Logo

Lotha Islam 9 months ago

Nice

Logo

Md.israfil 9 months ago

Thanks

Logo

Fatema khatun 9 months ago

Thanks