shasthokothaxyz@gmail.com

+8801953906973

রক্তনালীর ব্লক সমস্যা

সমস্ত শরীরে জালের মত ছড়িয়ে আছে রক্তনালী বা রক্ত চলাচলের মসৃণ রাস্তা । এর মধ্যে বিশুদ্ধ রক্ত যাতায়াতের রাস্তাকে ধমনী আর দূষিত রক্ত যাতায়াতের রাস্তাকে শিরা বলা হয় । বিভিন্ন কারনে রক্তনালীর গায়ে চর্বি জমে রক্তনালী ব্লক হয়ে বন্ধ হয়ে যেতে পারে । কোনরূপ কাটাছেঁড়া না করে রক্তনালীর ব্লক দূর করার নামই অ্যানজিওপ্লাস্টি । স্টেন্ট বা রিং বসিয়ে অ্যানজিওপ্লাস্টি করা হয় ।

fgggg Md Ashiqur Rahman ভিউ: 316

Logo

পোস্ট আপডেট 2020-09-20 15:01:01   1 year ago

হার্ট পাম্প করলে সারা শরীরে রক্ত পৌঁছে যাওয়ার মসৃণ রাস্তাগুলোকে রক্তনালি বলে। এটা ধমনি, শিরা বা রগ নামেও পরিচিত। এসব রক্তনালি হাত, পা, বুক, পেটসহ সারা শরীরে জালের মতো বিস্তৃত হয়ে আছে। তবে নানা কারণে এসব রক্তনালির কোথাও ব্লক হতে পারে, সরু হতে পারে বা স্বাভাবিকের চেয়ে মোটাও হয়ে যেতে পারে। আর এসব ঘটলে তখন সেই রক্তনালির চিকিৎসার দরকার পড়ে।


বিভিন্ন কারণে রক্তনালির  চর্বি জমে রক্তনালি ব্লকড হতে পারে, এর মধ্যে অন্যতম কারণগুলো হলো..


ধূমপান।

অনিয়ন্ত্রিত উচ্চ রক্তচাপ।

 অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিস।

রক্তে অতিমাত্রায় চর্বি।


এর মধ্যে ধূমপান বর্জনযোগ্য। আর অন্যগুলো নিয়ন্ত্রণযোগ্য।


রক্তনালীর ব্লক- এ কি কি সমস্যা হয় ?


হাঁটলে পায়ে ব্যাথা হয়, বিশ্রাম নিলে কিছুটা কমে যায় ।

রোগের তীব্রতা বাড়লে বিশ্রামরত অবস্থায়ও পায়ে ব্যাথা হতে পারে ।

পায়ে ঘা ।

পায়ে পচন বা গ্যাংরিন ।


কিভাবে রক্তনালীর ব্লক নিরুপন করা যায় ?


রোগীর উপসর্গ থেকে

হাত-পায়ের পালস বা নাড়ী পরীক্ষা করে

কম্পিউটারে ডপলার পরীক্ষার মাধ্যমে

অ্যানজিওগ্রামের মাধ্যমে


রক্তনালীর ব্লক অপসারনের উপায় কি ?


রোগীর উরু ও পেটের সংযোগস্থলে কুঁচকিতে স্থানীয়ভাবে অবশ করে ব্যাথামুক্ত অবস্থায় এক্তা সুঁই ঢুকানো হয় (অনেকটা স্যালাইন দেওয়ার মত) । পরবর্তীতে এক ধরনের ইঞ্জেকশন পুশ করে ছবি তোলা হয় । ছবিতে ব্লক ধরা পরে এটাই হলো অ্যানজিওগ্রাম ।


অ্যানজিওগ্রামের মাধ্যমে ব্লকের সঠিক স্থান (পেটের মধ্যে, উরুতে, পায়ে, বুকের মধ্যে বা হাতে) এবং মাত্রা বা বিস্তৃতি নির্ণয় করা যায়।


রক্তনালীর ব্লক অপসারনের পদ্ধতিকে বলা হয় অ্যানজিওপ্লাস্টি । অ্যানজিওগ্রাম করার সময় সরু বা বন্ধ রক্তনালী প্রথমে বেলুন দিয়ে মতা করা হয় । তারপর উক্ত স্থানে একটা রিং বা আংটি বা স্টেন্ট বসিয়ে দেয়া হয় । ফলে রিং এর মধ্যে দিয়ে রক্ত চলাচল করতে পারে ।


এছাড়া কাটাছেঁড়া করে রক্তনালীর বল্ক এর স্থানে জমে থাকা চর্বি পরিষ্কার করে অথবা বাইপাস অপারেশনের মাধ্যমে রক্ত সরবরাহ নিশিত করা হয়।


তাই রক্তনালির ব্লকড হওয়া থেকে সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত।



কমেন্ট


সাম্প্রতিক মন্তব্য


Logo

Md Ashiqur Rahman 10 months ago

thanks

Logo

Jannatul ferdush 9 months ago

Thanks

Logo

Farjana Rida 9 months ago

Thanks