shasthokothaxyz@gmail.com

+8801953906973

দাঁতের শিরশির দূর করার উপায়

দাঁতে শিরশিরে অনুভূতি নিয়ে সমস্যায় ভোগেন অনেকেই। বিভিন্ন কারণে দাঁতের উপরের প্রতিরক্ষা এনামেলের স্তর ক্ষয়ে যাওয়ার কারণে দাঁতের সেনসিটিভ অংশ উন্মুক্ত হয় পড়ে। যার কারণে ঠান্ডা বা গরম খাবার খাওয়ার সময় নার্ভে শিরশিরে অনুভুতি হয়।

fgggg Md Ashiqur Rahman ভিউ: 296

Logo

পোস্ট আপডেট 2021-01-18 18:48:58   10 months ago

সাধারণত দাঁতের সাদা অংশ এনামেল নষ্ট হয়ে ডেন্টিন নামক অংশ যখন বের হয়ে যায়, তখনই দাতে ঠান্ডা কিছু লাগলে দাঁত শির শির করে। কারণ ডেন্টিনাল টিউবলস এ ধরনের অনুভূতি বহন করে। এ অনুভূতি স্নায়ুর মাধ্যমে ব্রেনে পৌছে দেয়। সিমেন্টের দাঁতের গোড়ার অংশকে আবৃত করে রাখে। কিন্তু এটি এনামেলের মত পুরু হয় না। বিশেষ করে মাড়ির কাছে এর দূরত্ব কম হয়। যখন মাড়ির স্থান থেকে সরে যায়, গাম রিলেসন হয় তখন দাঁতের গোড়া বের হয়ে যায় এবং দাত শির শির করে। তবে দাঁত শিরশির করা বিভিন্ন কারণেই শুরু হতে পারে।



শিরশির করার কারণগুলো-


ব্রাশের কারণে:
অনেকেই মনে করেন যে, শক্ত ব্রাশ দিয়ে জোরে জোরে ব্রাশ করলে দাঁত সাদা হয়। প্রকৃত সত্য হচ্ছে, আপনি যদি শক্ত ব্রাশ ব্যবহার করেন, খুব জোরে এবং দীর্ঘ সময় দাঁত ব্রাশ করেন। তবে আপনার দাঁতের এনামেল তাড়াতাড়ি ক্ষয় হয়ে দাঁত শিরশির করতে থাকবে। এ ছাড়া শক্ত ব্রাশ ব্যবহার করার কারণে শিকড় থেকে মাড়ি আলগা হয়ে গিয়ে, আপনার দাঁতে শিরশির অনুভূত হতে পারে। তাই কোমল ব্রাশ দিয়ে আস্তে আস্তে সঠিক পদ্ধতিতে দাঁত ব্রাশ করুন।



টক জাতীয় খাবার:
বেশি পরিমানে টক জাতীয় খাবার খেলে, টক জাতীয় পানীয় পান করলে দাঁতের এনামেল নামক আবরণ ক্ষতিগ্রস্থ হয়। এবং দাঁতের ভিতরের ডেন্টিন নামক সংবেদনশীল অংশ উন্মুক্ত হয়ে যায়। তখন দাঁত শির শির করে। বেশি টক জাতীয় খাবার খেলে দাঁত শিরশির করবেই। তাই যারা বেশি টক খাবার নিয়ন্ত্রন করতে সক্ষম নন, তারা টক খাবার খাওয়ার পর সামান্য দুধ পান করতে পারেন। এ ছাড়া আপনি একটু মাখনও চিবুতে পারেন, যা দাঁতের টক খাবারের অম্লতা কমে আসতে পারে ।



মাউথ ওয়াশের অতিরিক্ত ব্যবহার:
সতেজ নিঃশ্বাসের জন্য যারা বারবার মাউথ ওয়াশের ব্যবহার করেন, তাদের মুখ গহবরে ঘা হওয়ার আশংকা থাকে। কোনো কোনো মাউথ ওয়াশে অম্লের পরিমান বেশি থাকায় তা আগে থেকেই সংবেদনশীল দাঁত, আরো বেশি সংবেদনশীল করে তোলে। ফলে দাঁত শিরশির করে। এক্ষেত্রে দিনে ১ বারের বেশি মাউথ ওয়াশ ব্যবহার করা উচিত নয়। প্রয়োজনে ফ্লোরাইড সমৃদ্ধ মাউথ ওয়াশ ব্যবহার করতে পারেন।



দাঁতে দাতঁ ঘসা:
অনেকেরই অভ্যাস আছে ঘুমের ঘোরে দাঁতে দাঁত ঘসার। যারা অভ্যাস বসত বা ঘুমের ঘোরে দাঁতে দাঁত ঘসেন, যারা দাতেঁর সঙ্গে দাঁতের শক্ত ভবে চেপে ধরেন, তাদের দাঁতের পৃষ্ঠদেশের এনামেল তাড়াতাড়ি ক্ষয় হয়ে যায়। এ কারণেও দাতঁ শির শির করে। এ ক্ষেত্রে ‘নাইট গার্ড’ নামক প্লাস্টিকের আবরন দাঁতে পড়ে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়। ডেন্টাল ক্লিনিকে ‘নাইট গার্ড’ তৈরীর ব্যবস্থা আছে।



সাময়িক উপসম টিপস:
যদি দাতঁ বেশি শিরশির না হয় তবে এগুলো কাজে আসবে। প্রথমে এক কাপ উষ্ণ গরম পানিতে আধা চা চামচ লবণ নিন। এই পানি দিয়ে কুলি করুন। লবণ পানি মুখের সব অংশে ছড়িয়ে গেলে ব্যথা হতে পারে। তবে কয়েক মিনিটের জন্য এই পানি মুখে রাখুন। এর পর ফেলে দিয়ে পরিষ্কার পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। দিনে ২ বার এটি করলে দ্রুত দাত শিরশির কমে যাবে।
একটি রসুন পেস্ট করুন। এর মধ্যে ২ – ৩ ফোটা পানি দিন। এবং সামান্য খাবার লবন দিয়ে দিন। আক্রান্ত দাঁতে সরাসরি পেস্টটি লাগান। কয়েক মিনিট এভাবে রাখুন। এর পর লবণ পানি দিয়ে মুখ কুলি করে ফেলুন। দিনে ২ বার এ কাজটি করলে আপনার দাঁত শিরশির একে বারে কমে যাবে।



কমেন্ট


সাম্প্রতিক মন্তব্য


Logo

Sony Akter 10 months ago

Thanks

Logo

Upma tewari 10 months ago

ধন্যবাদ